Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||   টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা দম্পতি নিহত      ||   শেষ পর্যন্ত সাকিবের ব্যাটেই হাসলো বাংলাদেশ      ||    রোহিঙ্গারা যাতে মিয়ানমারে ফিরতে না পারে বিএনপি ষড়যন্ত্র করছে- কাদের      ||   কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের বেহাল দশা      ||   ইমরান খানের সঙ্গে ট্রাম্পের বৈঠক সোমবার, মোদির সঙ্গে মঙ্গলবার      ||   মোদির কাছে কাশ্মীর ‘দখলের’ ব্যাখ্যা চাইল মার্কিন আদালত      ||   হোয়াইট হাউসের কাছে বন্দুকধারীর হামলা      ||   মিন্নির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির কপিতে ভয়াবহ বর্ণনা      ||   ঝুঁ‍কিতে থাকা সাত শতাধিক জনগোষ্ঠীর মধ্যে এলপিজি বিতরণ      ||   ইসলামে সব ধরনের জুয়া হারাম      ||   উখিয়ায় এনজিও কর্মীর মরদেহ উদ্ধার      ||   ছাত্রলীগের পর এবার যুবলীগকে ধরেছি: শেখ হাসিনা      ||   সেন্টমার্টিনে দুই লাখ ইয়াবাসহ মিয়ানমারের ৮ নাগরিক আটক      ||    রোহিঙ্গাদের অবশ্যই মিয়ানমারকে ফিরিয়ে নিতে হবে- প্রধানমন্ত্রী      ||   শহরের সড়ক গুলো মরণ ফাঁদে পরিণত:বাড়ছে দুর্ঘটনা     
প্রকাশ: 2019-09-18     ডেস্ক নিউজ চট্রগ্রাম

মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের ভোটার করা এবং জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাইয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ‘বড় ধরনের’ দুইটি সিন্ডিকেটের জড়িত থাকার তথ্য প্রাথমিক অনুসন্ধানে পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এর মধ্যে একটি সিন্ডিকেট হচ্ছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের আমলে ‘বিতর্কিত’ কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোহাম্মদ জকরিয়ার আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে গড়া ওঠা চক্র। আরেকটি সিন্ডিকেটে শাহনেওয়াজ নামে এনআইডি প্রকল্পে যুক্ত এক কর্মচারীর তথ্য পেয়েছে দুদক।

রোহিঙ্গাদের এনআইডি পাওয়া নিয়ে গত রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) তাৎক্ষণিক অভিযানে নামে দুদক চট্টগ্রামের এনফোর্সমেন্ট টিম। এরপর চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মকর্তারা ডবলমুরিং থানা নির্বাচন অফিসের কর্মচারী জয়নাল আবেদীনসহ তিন জনকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন। নির্বাচন কমিশনের খোয়া যাওয়া যে ল্যাপটপ ব্যবহার করে রোহিঙ্গাদের এনআইডি সরবরাহ করেছে জয়নাল, সেটিও উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রাথমিক অনুসন্ধানে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিস্তারিত অনুসন্ধানের অনুমতি চেয়ে বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুর্নীতি কমিশনের উপপরিচালকের (এনফোর্সমেন্টের) কাছে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। দুদকের চট্টগ্রামের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের-২ উপসহকারী পরিচালক মো.শরীফ উদ্দিন এই প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন।

জানতে চাইলে শরীফ উদ্দিন বলেন, ‘প্রাথমিক অনুসন্ধানে আমরা পেয়েছি, নির্বাচন কমিশনের দুইটি বড় ধরনের সিন্ডিকেট রোহিঙ্গাদের এনআইডি দেওয়া ও ভোটার করার সঙ্গে যুক্ত। দু’টি সিন্ডিকেটে ১৫ থেকে ২০ জন আছেন, যাদের সঙ্গে বড় বড় রাঘববোয়ালরাও জড়িত। আমরা বিস্তারিত অনুসন্ধানের অনুমতি চেয়েছি। কমিশন অনুমোদন দিলেই দ্রুত কাজ শুরু করব।’

দুদক ও চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গ্রেফতার হওয়া ডবলমুরিং থানা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মো. জয়নাল আবেদীন (৩৪) চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার বাঁশখালী পৌরসভার দক্ষিণ জলদী গ্রামের আবদুল মোনাফের ছেলে।

এই জয়নালের অন্তত ১০ জন আত্মীয় চাকরি করছেন নির্বাচন কমিশনে। ২০০৪ সালে নির্বাচন কমিশনে যোগ দেন জয়নাল। একই সময়ে তার ভগ্নিপতি নুর আহমদও যোগ দেন অফিস সহায়ক পদে। নুর আহমদ এখনো আছেন চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসে। আবার কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারী মো. মোজাফফর গ্রেফতার জয়নালের খালাত ভাই। রাঙ্গামাটি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের উচ্চমান সহকারী মোহাম্মদ আলীও জয়নালের নিকটাত্মীয়। আর কমিশন সচিবালয়ে কর্মরত প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওসমান গণি এই মোহাম্মদ আলীর ভাগ্নে।

এছাড়া গ্রেফতার জয়নাল আবেদীন সম্পর্কে নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোহাম্মদ জকরিয়ার ভাগ্নে। জয়নাল ও জকরিয়া— দু’জনের বাড়িই বাঁশখালী উপজেলায়। জয়নালের আত্মীয়-স্বজন যারা নির্বাচন কমিশনে চাকরি করছেন, তাদের অধিকাংশের বাড়িও বাঁশখালীতে।

দুদকের এক কর্মকর্তা  বলেন, ‘জয়নাল আবেদিন ও তার আত্মীয়-স্বজনরা ইসিতে নিয়োগ পেয়েছেন ২০০৪ সালে। সেসময় কমিশনে জকরিয়া সাহেবের খুব প্রভাব ছিল। নিঃসন্দেহে বলা যায়, তাদের নিয়োগের ক্ষেত্রে জকরিয়া সাহেবের প্রভাব ছিল। রোহিঙ্গাদের এনআইডি দেওয়ার ক্ষেত্রে এ পর্যন্ত দুদকের কাছে যাদের জড়িত থাকার তথ্য এসেছে, তারাও জয়নাল ও তার আত্মীয়স্বজনরাই। অনুমতি পেলে এসব বিষয়ে বিস্তারিত অনুসন্ধান করা হবে।’

আশির দশকের মাঝামাঝিতে নির্বাচন কমিশনে যোগ দেওয়া মোহাম্মদ জকরিয়া বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের আমলে খুবই ক্ষমতাধর হিসেবে আলোচনায় আসেন। ওই সময়কার যুগ্ম সচিব জকরিয়া সাবেক রাষ্ট্রপতি ইয়াজউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বিতর্কিত ‘এম এ আজিজ কমিশনের’ অধীনে ভারপ্রাপ্ত সচিব হয়েছিলেন। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের আন্দোলনের সময় বিচারপতি আজিজ কমিশনের পদত্যাগের সঙ্গে সচিব জকরিয়াকে অপসারণের দাবিও উঠেছিল। ওয়ান-ইলেভেনের জরুরি অবস্থায় তত্ত্বাবধায়ক সরকার এসে জকরিয়াকে ওএসডি করে। প্রায় ১০ বছর ওএসডি থাকার পর জকরিয়া ২০১৭ সালে অবসরজনিত ছুটিতে যান।

রোহিঙ্গাদের এনআইডি জালিয়াতিতে আত্মীয়স্বজনদের সম্পৃক্ত হয়ে পড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মদ জকরিয়া বলেন, ‘আমার স্ত্রী খুবই অসুস্থ। আমি দীর্ঘদিন ভারতে টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে ছিলাম। আজ (বুধবার) ফিরেছি। ইসিতে কি হচ্ছে না হচ্ছে, এসব বিষয়ে আমার কিছুই জানা নেই।’

গ্রেফতার হওয়া জয়নালের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রথমে কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানান জকরিয়া। অনুরোধের একপর্যায়ে বলেন, ‘আমার বাড়ি বাঁশখালীতে। সেখানে আমার অনেক আত্মীয়স্বজন আছে। কারও বিষয়েই আমি কিছু জানি না। মাত্র দেশে এসেছি। আস্তে আস্তে হয়তো জানতে পারব।’

জয়নালের স্বজনদের বাইরে আরও একটি চক্রের বিষয়ে প্রাথমিক অনুসন্ধানে তথ্য পেয়েছে দুদক। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এই চক্রের সঙ্গে আছে এনআইডি উইংয়ের টেকনিক্যাল এক্সপার্ট শাহনেওয়াজ ও তার কমপক্ষে ১৬ জন স্বজন। এদের সবাই স্থায়ী ও আউটসোর্সিংয়ের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশনে কর্মরত আছেন।

এদিকে, দুদক থেকে পাঠানো প্রাথমিক অনুসন্ধানে রোহিঙ্গাদের ভোটার করা ও এনআইডি পাইয়ে দেওয়ার সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সম্পদের অনুসন্ধানেরও অনুমতি চেয়েছে দুদকের এনফোর্সমেন্ট টিম।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ২০১৫ সাল থেকে কতজন রোহিঙ্গা ভোটার তালিকায় অর্ন্তভুক্ত হয়েছেন ও এনআইডি পেয়েছেন, নির্বাচন কমিশন এর আগে কাউকে শনাক্ত করতে পেরেছিল কি না, তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কি না, তদন্ত হয়েছিল কি না, তদন্ত হলে কী কী তথ্য তারা পেয়েছিলেন, এই চক্রের সঙ্গে কারা জড়িত— এসব বিষয় এবং তাদের সম্পদের অনুসন্ধানের অনুমতি চাওয়া হয়েছে প্রাথমিক প্রতিবেদনে।


চট্রগ্রাম
রোহিঙ্গাদের হাতে এনআইডির নেপথ্যে সেই ‘জকরিয়া চক্র’

রোহিঙ্গাদের এনআইডি করার অপরাধে আটক ৩

সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাচন: ১৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা

বঙ্গোপসাগরে কয়লাবোঝাই জাহাজডুবি, ১২ নাবিক নিখোঁজ

পার্বত্য অঞ্চলের রাজনীতি উত্তপ্ত

সাজানো অস্ত্র মামলা থেকে খালাস পেলেন সমর চৌধুরী

২৬ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

দৃশ্যমান হচ্ছে চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্স

উখিয়াবাসীকে জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর ঈদ শুভেচ্ছা

চট্টগ্রামের অর্ধ শতাধিক গ্রামে ঈদ পালিত

 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
  Copyright © Coxsbazarvoice 2019-2020, Developde by JM IT SOLUTION