Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||   বিশ্বকাপ জয় বাঙালি জাতির জন্য সবচেয়ে বড় উপহার-প্রধানমন্ত্রী      ||   জুনিয়রদের কাছ থেকে শেখার অনেক কিছু রয়েছে-মুমিনুল হক      ||   বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের সংবর্ধনা দিবে সরকার      ||   মুজিববর্ষ:দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় তিন লাখ সাইলো (মোটকা) বিতরণ করবে সরকার      ||   দেশের বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য পরিক্ষা তথ্য বিভ্রাট      ||   ভারতীয় খেলোয়াড়রা অপেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছে- ধারাভাষ্যকারদের মন্তব্য      ||   টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত      ||   রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে চায় সৌদি আরব      ||   করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সতর্কবস্থায় বাংলাদেশ      ||   যুব বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ      ||   প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আইওএম'র বাস ‍উপহার      ||   আফগানিস্তানে ২ মার্কিন সেনা নিহত      ||   রোহিঙ্গাদের দিয়ে কৌশল পাল্টাচ্ছে ইয়াবা কারবারিরা!      ||   থাইল্যান্ডে গুলি চালিয়ে ২০জনকে হত্যাকারি সেই সেনা সদস্য নিহত      ||   থাইল্যান্ডে সেনা সদস্যর এলোপাতাড়ি গুলিতে নিহত ১২     
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ‘সেইফ জোন’ সম্ভব নয়: মিয়ানমার
প্রকাশ: 2019-09-29 14:49:10   ডেস্ক নিউজ আন্তর্জাতিক

রোহিঙ্গাদের দেশে ফিরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে ‘সেইফ জোন’ বা নিরাপদ অঞ্চল গঠনের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়ে মিয়ানমার বলেছে, দুই বছর আগে সম্পাদিত দ্বিপক্ষীয় প্রত্যাবাসন চুক্তির বাইরে গিয়ে কিছু করার নেই।

জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের পঞ্চম দিনের বিতর্কে নিউ ইয়র্কের স্থানীয় সময় শনিবার রাতে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর কার্যালয়ের মন্ত্রী কোয়ে তিন্ত সোয়ে একথা বলেন। তবে আন্তর্জাতিক মহলের উদ্বেগের মুখে তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য ‘আরও উপযোগী পরিবেশ’ তৈরিতে মিয়ানমার এখন অগ্রাধিকার দেবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন দেশটির জ্যেষ্ঠ এ কর্মকর্তা। তিনি বলেন, এক্ষেত্রে অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে বাংলাদেশ, জাতিসংঘ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির জোটে আসিয়ানের মধ্য সহযোগিতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।২০১৭ সালের অগাস্টে সেনা অভিযানের পর প্রায় ৯ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী সীমান্তবর্তী বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে।

ওই বছরের নভেম্বরে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী প্রত্যাবাসন হবে জানিয়ে কোয়ে তিন্ত সোয়ে বলেন, “মিয়ানমারের ভেতরে ‘সেইফ জোন’ বা নিরাপদ অঞ্চল তৈরির চাপ রয়েছে। কিন্তু এটি নিশ্চিত করা যাবে না, বাস্তবসম্মতও নয়।”বাংলাদেশকে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি বিশ্বস্ততার সঙ্গে বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এটাই বাস্তুচ্যুত ব্যক্তিদের সমস্যা সমাধানের একমাত্র সম্ভাব্য উপায়।

এর আগে এই অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, রাখাইনে সুরক্ষা, নিরাপত্তা ও চলাফেরার স্বাধীনতাসহ সামগ্রিক অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি না হওয়ায় রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরতে রাজি নয়।

বর্তমানে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছেন, যাদের মধ্যে প্রায় ৯ লাখ রোহিঙ্গা এসেছেন ২০১৭ সালের অগাস্টে রাখাইনে নতুন করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দমন-পীড়ন শুরু হওয়ার পর। জাতিসংঘ ওই অভিযানকে ‘জাতিগত নির্মূল’ অভিযান হিসেবে বর্ণনা করে আসছে।

যাচাই-বাছাই করে মিয়ানমার প্রত্যাবাসনের ৩ হাজার ৪৫০ জন রোহিঙ্গার তালিকা চূড়ান্ত করলেও দেশটি উপযুক্ত পরিবেশ তৈরিতে ব্যর্থ হওয়ায় দুদফা চেষ্টার পরও তাদের কাউকে ভিটেমাটিতে ফেরত পাঠানো যায়নি।

রোহিঙ্গা সঙ্কট বড় আকার ধারণ করার পর ২০১৭ সালে জাতিসংঘের ৭২তম সাধারণ অধিবেশনে এ সমস্যার সমাধানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী পাঁচটি প্রস্তাব তুলে ধরেছিলেন, যার মধ্যে রাখাইন রাজ্যে আলাদা ‘বেসামরিক পর্যবেক্ষক সেইফ জোন’ প্রতিষ্ঠাসহ কফি আনান কমিশনের সুপারিশগুলোর সম্পূর্ণ বাস্তবায়নের কথা ছিল।

তবে এবারের অধিবেশনে রোহিঙ্গাদের স্ব-ভূমে ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে যে চারটি প্রস্তাব দিয়েছেন, তাতে সেইফ জোনের কথা নেই। তবে সেখানে ‘রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার ও সুরক্ষার নিশ্চয়তায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় থেকে বেসামরিক পর্যবেক্ষক মোতায়েনের’ কথা বলা হয়েছে।

তিন্ত সোয়ে বলেন, এখন মিয়ানমার প্রত্যাবাসনের জন্য আরও অনুকূল পরিবেশ তৈরিকে অগ্রাধিকার দেবে।

রাখাইন রাজ্যে বসবাসরত এসব বাস্তুচ্যুতদের ‘পৃথক আইনি মর্যাদা’ আছে। তালিকাভুক্ত এসব প্রত্যাবর্তনকারীদের মধ্যে যারা নাগরিকত্ব পাওয়ার যোগ্য তাদের ‘নাগরিকত্ব কার্ড’ দেওয়া।

বাকিদের দেওয়া হবে ‘ন্যাশনাল ভেরিকেশন কার্ড’ (এনভিসি), যাকে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীদের জন্য দেওয়া ‘গ্রিন কার্ড’ এর সঙ্গে তুলনা করেন এই কর্মকর্তা।

সোয়ে দাবি করেন, বর্তমান মানবিক সংকট তৈরি হয়েছে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে, যখন চরমপন্থী গোষ্ঠী আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরএসএ) সশস্ত্র হামলা চালায়। তার আগে রাখাইন রাজ্যে শান্তি ও স্থিতিশীলতা আনতে সরকার সচেষ্ট ছিল।

আন্তর্জাতিক
সাগরপাড়ে এ কেমন যৌনতা!

করোনা ভাইরাসের নাম পাল্টে যাচ্ছে

আফগানিস্তানে ২ মার্কিন সেনা নিহত

থাইল্যান্ডে গুলি চালিয়ে ২০জনকে হত্যাকারি সেই সেনা সদস্য নিহত

থাইল্যান্ডে সেনা সদস্যর এলোপাতাড়ি গুলিতে নিহত ১২

ট্রাম্পের অভিসংশন: দুই কর্মকর্তাকে বরখাস্ত

করোনা ভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা ৭২২ ছাড়িয়েছে

মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করবে তেহরান

ভারতে মার্কিন দূতাবাসে ৫ বছরের শিশু ধর্ষণের অভিযোগ

করোনাভাইরাসের খবর ফাঁসকারী সেই চীনা ডাক্তার মারা গেছেন

বিশ্বকাপ জয় বাঙালি জাতির জন্য সবচেয়ে বড় উপহার-প্রধানমন্ত্রী
জুনিয়রদের কাছ থেকে শেখার অনেক কিছু রয়েছে-মুমিনুল হক
বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের সংবর্ধনা দিবে সরকার
মুজিববর্ষ:দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় তিন লাখ সাইলো (মোটকা) বিতরণ করবে সরকার
দেশের বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য পরিক্ষা তথ্য বিভ্রাট
ভারতীয় খেলোয়াড়রা অপেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছে- ধারাভাষ্যকারদের মন্তব্য
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত
রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে চায় সৌদি আরব
করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সতর্কবস্থায় বাংলাদেশ
যুব বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ
প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আইওএম'র বাস ‍উপহার
আফগানিস্তানে ২ মার্কিন সেনা নিহত
রোহিঙ্গাদের দিয়ে কৌশল পাল্টাচ্ছে ইয়াবা কারবারিরা!
থাইল্যান্ডে গুলি চালিয়ে ২০জনকে হত্যাকারি সেই সেনা সদস্য নিহত
থাইল্যান্ডে সেনা সদস্যর এলোপাতাড়ি গুলিতে নিহত ১২
দেশের প্রতিটি জেলায় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হবে-জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী
 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
About Coxsbazar Voice
Advertisement
Contact
Web Mail
Privacy Policy
Terms & Conditions
কক্সবাজার ভয়েস পত্রিকার কোন সংবাদ,লেখা,ছবি বা কোন তথ্য পূর্ব অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
All rights reserved © 2019 COXSBAZAR VOICE Developed by : JM IT SOLUTION