Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||   আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পেল জিম্বাবুয়ে      ||   হাইকোর্টে স্থগিত ড. ইউনূসের গ্রেফতারি পরোয়ানা      ||   বাঁকখালী নদীতে কল্পজাহাজ ভাসিয়ে প্রবারণা পূর্ণীমার সমাপ্তি      ||   বিপন্ন সেন্টমার্টিন      ||   আবরারের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে: প্রধানমন্ত্রী      ||   উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যুবককে জবাই করে হত্যা      ||   ঘুমধুম ভোটকেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা, বিজিবি’র গুলিতে নিহত ২      ||   পুলিশ সুপারের সঙ্গে জেলা ইলেকট্রিশিয়ান শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎ      ||   টেকনাফে বিজিবি-বিজিপি রিজিয়ন পর্যায়ে পতাকা বৈঠক      ||   জেলা ইলেকট্রিশিয়ান শ্রমিক ইউনিয়নের নব-কমিটির শপদ অনুষ্ঠান সম্পন্ন      ||   বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রবারণা পূর্ণিমা শুরু সম্প্রীতির বন্ধনে      ||   শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রাজনীতি বন্ধে হাসিনা-খালেদাকে বিবাদী করে রিট      ||   টাইফুনে লন্ডভন্ড জাপান, নিহত বেড়ে ১৯      ||   আমাদের কর্তব্য মানুষের পাশে দাঁড়ানো-প্রধানমন্ত্রী      ||   বান্দরবানে প্রবারণা উৎসব শুরু     
নিপীড়নমূলক বিধি-ব্যবস্থার অবসান ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছে মিয়ানমার: জাতিসংঘ
প্রকাশ: 2019-10-05     ডেস্ক নিউজ আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশে পালিয়ে আসা লাখ লাখ রোহিঙ্গার ফিরে যাওয়ার জন্য মিয়ানমার নিরাপদ নয় বলে মনে করছেন জাতিসংঘের স্বাধীন তদন্তকারী ইয়াংঘি লি। কারণ হিসেবে তিনি বলেছেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত নিপীড়নমূলক বিধি-ব্যবস্থার অবসান ঘটাতে নেপিদো ব্যর্থ হয়েছে। শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এই অভিযোগ করেছেন জাতিসংঘের নিয়োগকৃত মিয়ানমার বিষয়ক এই তদন্তকারী। সাধারণ পরিষদে বিলি করা ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এখনও উত্তর রাখাইনে  থেকে যাওয়া রোহিঙ্গারা ভয়ঙ্কর পরিবেশে বসবাস করছে।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার প্রত্যাবাসন চুক্তি সম্পন্ন হয়। একই বছরের ৬ জুন নেপিদোতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে মিয়ানমার ও জাতিসংঘের সংস্থাগুলোর মধ্যেও সমঝোতা চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী,গত বছরের ১৫ নভেম্বর প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। তবে আবারও হামলার মুখে পড়ার আশঙ্কায় রোহিঙ্গারা নিজ দেশে ফিরতে অস্বীকৃতি জানায়। দ্বিতীয় দফায় গত ২২ আগস্ট রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের তারিখ নির্ধারিত হলেও সেই উদ্যোগও ব্যর্থ হয়। সম্প্রতি শেষ হওয়া জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের পার্শ্ববৈঠকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে চীনের সঙ্গে যৌথ ওয়ার্কিং কমিটি গঠনে সম্মত হয়েছে মিয়ানমার ও বাংলাদেশ।

এমন প্রেক্ষাপটে শুক্রবারের প্রতিবেদনে জাতিসংঘের তদন্তকারী ইয়াংঘি লি বলেন, রাখাইনে থেকে যাওয়া রোহিঙ্গারা তাদের গ্রামের বাইরে যেতে পারছে না, জীবিকা উপার্জন করতে পারছে না। ফলে তাদেরকে নির্ভর করতে হচ্ছে সেখানে প্রবেশের সুযোগ পাওয়া সীমিত মানবিক সাহায্যের ওপর। তিনি বলেন, যখন এই পরিস্থিতি বিরাজ করছে তখন শরণার্থীদের স্থায়ীভাবে ফিরে যাওয়া নিরাপদ নয়।

২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার ঘটনার পর পূর্বপরিকল্পিত ও কাঠামোগত সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধরনের সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে নতুন করে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সাত লাখেরও বেশি মানুষ। তাদের সঙ্গে রয়েছেন ১৯৮২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত নানা অজুহাতে নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচার জন্যে বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নেওয়া আরও অন্তত সাড়ে তিন লাখ রোহিঙ্গা। সব মিলে বাংলাদেশে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। আর এখনও রাখাইনে থেকে গেছে আরও কয়েক লাখ রোহিঙ্গা।

শুক্রবারের প্রতিবেদনে জাতিসংঘের তদন্তকারী ইয়াংঘি লি মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গ্রামের বসতি গণনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন, প্রশাসনিক নথি থেকে রোহিঙ্গাদের মুছে ফেলতে এই উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে আর এতে তাদের ফিরে আসার সম্ভাবনা আরও সংকুচিত হবে। লি জানান, তিনি এখনও রোহিঙ্গাদের মারধর, হত্যা, বাড়িঘর ও চালের গুদাম পুড়িয়ে দেওয়ার খবর পাচ্ছেন।

মিয়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনী বরাবরই মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। তাদের দাবি বিদ্রোহী হামলার প্রেক্ষিতে বৈধ অভিযান চালাচ্ছে তারা।


আন্তর্জাতিক
ট্রাকে বেঁধে টানা হলো মেয়রকে!

টাইফুনে লন্ডভন্ড জাপান, নিহত বেড়ে ১৯

তুরস্ক ও কুর্দিদের মাঝে মধ্যস্থতার প্রস্তাব ট্রাম্পের

শি জিনপিংয়ের সঙ্গে দেখা করতে চীন সফরে ইমরান খান

সহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার নেপালের সাবেক স্পিকার

মিয়ানমারে নাগরিকত্বহীন ৩০ রোহিঙ্গার কারাদণ্ড

নিপীড়নমূলক বিধি-ব্যবস্থার অবসান ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছে মিয়ানমার: জাতিসংঘ

পেঁয়াজ ছাড়াই রান্না করতে হচ্ছে: শেখ হাসিনার এক খোঁচাতেই দিল্লির ভোলবদল

লাদেনের সঙ্গে বৈঠকে বসা জঙ্গি ঢাকায় গ্রেফতার

১১ আফগান পুলিশকে হত্যা করল তালেবান

আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পেল জিম্বাবুয়ে
হাইকোর্টে স্থগিত ড. ইউনূসের গ্রেফতারি পরোয়ানা
বাঁকখালী নদীতে কল্পজাহাজ ভাসিয়ে প্রবারণা পূর্ণীমার সমাপ্তি
বিপন্ন সেন্টমার্টিন
আবরারের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে: প্রধানমন্ত্রী
উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যুবককে জবাই করে হত্যা
ঘুমধুম ভোটকেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা, বিজিবি’র গুলিতে নিহত ২
পুলিশ সুপারের সঙ্গে জেলা ইলেকট্রিশিয়ান শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎ
টেকনাফে বিজিবি-বিজিপি রিজিয়ন পর্যায়ে পতাকা বৈঠক
জেলা ইলেকট্রিশিয়ান শ্রমিক ইউনিয়নের নব-কমিটির শপদ অনুষ্ঠান সম্পন্ন
বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রবারণা পূর্ণিমা শুরু সম্প্রীতির বন্ধনে
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রাজনীতি বন্ধে হাসিনা-খালেদাকে বিবাদী করে রিট
টাইফুনে লন্ডভন্ড জাপান, নিহত বেড়ে ১৯
আমাদের কর্তব্য মানুষের পাশে দাঁড়ানো-প্রধানমন্ত্রী
বান্দরবানে প্রবারণা উৎসব শুরু
‘এখন সবাই আওয়ামী লীগের নৌকায় উঠতে চায়’ তথ্যমন্ত্রী
 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
About Coxsbazar Voice
Advertisement
Contact
Web Mail
Privacy Policy
Terms & Conditions
কক্সবাজার ভয়েস পত্রিকার কোন সংবাদ,লেখা,ছবি বা কোন তথ্য পূর্ব অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
All rights reserved © 2019 COXSBAZAR VOICE Developed by : JM IT SOLUTION