Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||   সদর খাদ্য গুদাম সীলগালা: আটক ২      ||   কাশ্মির সীমান্তে ভারত-পাকিস্তান সংঘর্ষ, নিহত অন্তত ১০      ||   সোনাদিয়ায় কোন ধরণের শিল্প কারখানা করা যাবে না-প্রধানমন্ত্রী      ||   প্রথম ছবি মুক্তির দিন রানির জীবনে আসে বড় অঘটন      ||   যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বহিষ্কার      ||   ভোলার ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় নয়: প্রধানমন্ত্রী      ||   যানজটের নগরী কক্সবাজার      ||   খড়কুটো আঁকড়ে ধরা ঐক্যফ্রন্ট জনগণের সাড়া পাচ্ছে না: তথ্যমন্ত্রী      ||   জাতীয় যুবজোটের সম্মেলন ২ নভেম্বর:প্রস্তুতি পরিষদ গঠিত      ||   ইয়াবার জন্য কক্সবাজারে চেম্বার চিকিৎসকের!      ||   ডিবির লোক দেখানো অভিযান: থেমে নেই ম্যাসাজ পার্লারের অনৈতিক কর্মকান্ড      ||   টেকনাফে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদককারবারি নিহত      ||   মদিনায় দুর্ঘটনায় নিহতদের ১১ জন বাংলাদেশি      ||   পেকুয়ায় কমিউনিটি পুলিশের সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি      ||   রামুতে ভুয়া খতিয়ানে ভোটার হওয়ার চেষ্টায় ২ জনকে অর্থদণ্ড     
কারাগারে ‘বিশেষ সুবিধায়’ বদির চার ভাই
প্রকাশ: 2019-06-19     নিউজ ডেস্ক কক্সবাজার ভয়েস

কক্সবাজার জেলা কারাগারের ৩ নম্বর সেলের ২ নম্বর ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডকে ঘিরে সবসময় কারারক্ষীদের ভিড় লেগেই থাকে। কারা কর্মকর্তাদের আনাগোনাও বেশি এই ওয়ার্ডে। ওয়ার্ডের বন্দিরা সবাই যেন ‘ভিআইপি’। তারা মোবাইল ফোনে কথা বলেন। গরুর মাংস, মুরগি ও বড় মাছ দিয়ে রাজসিক খাবার পরিবেশন করা হয় তাদের। ওয়ার্ডের দেয়াল ও ফ্লোরে ঝকঝকে নতুন টাইলস লাগানো হয়েছে। ওয়ার্ডের প্রত্যেক বন্দি ৫০ হাজার টাকা মাসোহারা দিয়ে এসব সুযোগ নিচ্ছেন। আর প্রতিদিনের জন্য বাড়তি অর্থ তো আছেই। এখানকার বন্দিরা আর কেউ নন; সম্প্রতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে আত্মসমর্পণ করা কোটিপতি ইয়াবা কারবারি তারা। তাদের মধ্যে রয়েছেন কক্সবাজারের সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদির চার ভাই আবদুস শুক্কুর, আমিনুর রহমান, মো. ফয়সাল রহমান ও শফিকুল ইসলাম। পাশাপাশি আছেন আরও একাধিক কোটিপতি ইয়াবা কারবারি। এই কারাগারে অভিযান শেষে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়-২ থেকে প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

গত রবিবার দুদক কক্সবাজার কারাগারে অভিযান চালায়। এতে অংশ নেয় দুদকের সহকারী পরিচালক হুমায়ুন কবির ও উপসহকারী পরিচালক মো. রিয়াজউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন বিশেষ দল। রিয়াজউদ্দিন গতকাল দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘দুদকের অভিযানে কক্সবাজার জেলা কারাগারে বেশুমার অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়া গেছে। সেটা প্রতিবেদন আকারে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে

শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশসহ ই-মেইলযোগে প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদনে কয়েক কর্মকর্তার অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণেরও সুপারিশ রয়েছে।’

প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানান, প্রতিবেদনটি শিগগিরই কমিশনে উত্থাপন করা হবে। কমিশনের অনুমোদন সাপেক্ষে দুর্নীতি-অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। প্রতিবেদনে কক্সবাজার কারাগারের তত্ত্বাবধায়ক বজলুর রহমান, জেলার ও কয়েকজন ডেপুটি জেলার এবং কারারক্ষীর অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানের কথাও বলা হয়েছে। দুদকের সরেজমিন অনুসন্ধান প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কক্সবাজার জেলা কারাগার যেন ইয়াবা

 কারবারিদের স্বর্গরাজ্য। জেলার ইয়াবা কারবারি ছাড়াও সারা দেশের বড় ইয়াবা কারবারিরা তদবির করে এ কারাগারে চালান হয়ে আসেন। এই কারাগারের ৪ হাজার ৩৮৮ জন বন্দির মধ্যে ৭০ শতাংশই ইয়াবা কারবারি। কারারক্ষীরা ইয়াবা কারবারিদের টার্গেট করে অর্থ আদায় করেন। আর এতে অবহেলা ও বঞ্চনার শিকার হন সাধারণ বন্দিরা। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বদির কয়েকজন স্বজনসহ আত্মসমর্পণ করা ১০২ জন ইয়াবা কারবারিকে কক্সবাজার কারাগারে রাখা হয়েছে। তাদের কারণে অন্য বন্দিরা কোণঠাসা হয়ে পড়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কারাবন্দিদের কাছে প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি করা হয় ১৭০০ টাকায়। মুরগির মাংস (ব্রয়লার) বিক্রি হয় ৬০০ টাকা কেজি দরে। এই উচ্চ দামের মাংসের ক্রেতারা হচ্ছেন আত্মসমর্পণ করা কোটিপতি ইয়াবা কারবারিরা। কারাগারে বন্দিদের মোবাইল ফোন ব্যবহার করার সুযোগ দিয়ে কারারক্ষীরা প্রতি পাঁচ মিনিটের জন্য অবৈধভাবে আদায় করেন ১২০০ টাকা। অতিরিক্ত প্রতি মিনিটের জন্য নেওয়া হয় ১০০ টাকা হারে।

দুদকের প্রতিবেদনে বলা হয়, মাসোহারা দিয়ে কারা হাসপাতালের বেডগুলোর প্রায় সবকটিই ইয়াবা কারবারিরা দখল করে রেখেছেন। কেউ পরিদর্শনে গেলে দ্রুত তাদের সরিয়ে সেখানে কয়েকজন অসুস্থ ও পাগল-প্রকৃতির লোক এনে রাখা হয়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, কক্সবাজার কারাগারের ২০টি ওয়ার্ডে পাঁচটি ক্যান্টিন আছে। এছাড়া ওয়ার্ডের বাইরে কারা ফটকেও রয়েছে আরেকটি ক্যান্টিন। ক্যান্টিনগুলো বন্দিদের জিম্মি করে টাকা উপার্জনের বড় ফাঁদ। বিশ্বস্ত কয়েদিদের সহায়তায় রক্ষীরাই ক্যান্টিনগুলো নিয়ে গলাকাটা বাণিজ্য করেন। খাবার-দাবার থেকে শুরু করে নিত্যপ্রয়োজনীয় প্রায় সব পণ্য পাওয়া যায় এসব ক্যান্টিনে। সেখানে প্রকৃত দামের তিন-চারগুণ বেশি দাম রাখা হয়। বন্দিদের স্বজনরা বাইরে থেকে কোনো পণ্য নিয়ে ভেতরে দিতে পারেন না। নির্ধারিত চড়া দামে ক্যান্টিন থেকেই সবকিছু কিনতে হয়। ক্যান্টিনগুলো থেকে মাসে প্রায় কোটি টাকা মুনাফা হয় বলে প্রতিবেদনে বলা হয়। যার বড় অংশই যায় কারারক্ষী ও কর্মকর্তাদের পকেটে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কারাগারে পানির অভাব হওয়ায় আত্মসমর্পণ করা টেকনাফের হ্নীলা গ্রামের বাসিন্দা এক ইয়াবা কারবারি ৭-৮ লাখ টাকা খরচ করে দুটি গভীর নলকূপও স্থাপন করে দিয়েছেন। এরপর থেকে তিনি বিশেষ সুবিধা পাচ্ছেন। ২০টি ওয়ার্ডের যেখানেই ইচ্ছা সেখানেই থাকতে পারেন তিনি।

দুদকের অভিযানের বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার জেলা কারাগারের তত্ত্বাধায়ক বজলুর রশীদ আখন্দ দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আমার কারাগারে ৫৩০ জন ধারণক্ষমতার মধ্যে বন্দি আছে ৪ হাজার ৩৮৮ জন। যাদের ৭০ শতাংশই ইয়াবা কারবারি। তাদের সেলে না রাখলে আমি কোথায় রাখব? ইয়াবা কারবারি বলে তো আমি তাদের ক্রসফায়ারে দিতে পারি না, তাদের ওয়ার্ডেই রাখতে হবে।’

কেজিপ্রতি ১৭০০ টাকায় মাংস বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমি কাঁচা মাংস কার কাছে বিক্রি করব, তারাই বা কাঁচা মাংস কিনে কী করবেন? এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন। দুদকের কর্মকর্তারাও বিষয়টি নিয়ে হাসাহাসি করেছেন।’ বজলুর রশীদ আরও বলেন, ‘কিছু স্থানীয় সাংবাদিক কারাগারের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করছেন। তারা সাত দিন কক্সবাজার কারাগারে থাকলে বুঝতেন এখানে আসলে প্রকৃত অবস্থা কতটা ভয়াবহ। কারণ বাংলাদেশের সব কারাগারের মধ্যে কক্সবাজার সবচেয়ে জনাকীর্ণ। এখানে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া খুবই কঠিন।’-সূত্র-দেশ রূপান্তর।

কক্সবাজার ভয়েস
সদর খাদ্য গুদাম সীলগালা: আটক ২

যানজটের নগরী কক্সবাজার

জাতীয় যুবজোটের সম্মেলন ২ নভেম্বর:প্রস্তুতি পরিষদ গঠিত

ডিবির লোক দেখানো অভিযান: থেমে নেই ম্যাসাজ পার্লারের অনৈতিক কর্মকান্ড

টেকনাফে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদককারবারি নিহত

পেকুয়ায় কমিউনিটি পুলিশের সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি

রামুতে ভুয়া খতিয়ানে ভোটার হওয়ার চেষ্টায় ২ জনকে অর্থদণ্ড

ভাসান চরে যেতে রাজি হচ্ছে রোহিঙ্গারা

ইনানীতে গুলিবিদ্ধ অজ্ঞাত যুবকের মৃতেদেহ উদ্ধার

সমুদ্রপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টাকালে ৬ রোহিঙ্গা উদ্ধার

সদর খাদ্য গুদাম সীলগালা: আটক ২
কাশ্মির সীমান্তে ভারত-পাকিস্তান সংঘর্ষ, নিহত অন্তত ১০
সোনাদিয়ায় কোন ধরণের শিল্প কারখানা করা যাবে না-প্রধানমন্ত্রী
প্রথম ছবি মুক্তির দিন রানির জীবনে আসে বড় অঘটন
যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বহিষ্কার
ভোলার ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় নয়: প্রধানমন্ত্রী
যানজটের নগরী কক্সবাজার
খড়কুটো আঁকড়ে ধরা ঐক্যফ্রন্ট জনগণের সাড়া পাচ্ছে না: তথ্যমন্ত্রী
জাতীয় যুবজোটের সম্মেলন ২ নভেম্বর:প্রস্তুতি পরিষদ গঠিত
ইয়াবার জন্য কক্সবাজারে চেম্বার চিকিৎসকের!
ডিবির লোক দেখানো অভিযান: থেমে নেই ম্যাসাজ পার্লারের অনৈতিক কর্মকান্ড
টেকনাফে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদককারবারি নিহত
মদিনায় দুর্ঘটনায় নিহতদের ১১ জন বাংলাদেশি
পেকুয়ায় কমিউনিটি পুলিশের সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি
রামুতে ভুয়া খতিয়ানে ভোটার হওয়ার চেষ্টায় ২ জনকে অর্থদণ্ড
ভাসান চরে যেতে রাজি হচ্ছে রোহিঙ্গারা
 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
About Coxsbazar Voice
Advertisement
Contact
Web Mail
Privacy Policy
Terms & Conditions
কক্সবাজার ভয়েস পত্রিকার কোন সংবাদ,লেখা,ছবি বা কোন তথ্য পূর্ব অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
All rights reserved © 2019 COXSBAZAR VOICE Developed by : JM IT SOLUTION