Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||    প্রিয় নায়িকার জন্য পাঁচ রাত ফুটপাথে ভক্ত      ||   মিয়ানমারের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি করা সরকারের ভুল ছিল-বিএনপি      ||   রোহিঙ্গারা বললেন-এই রায় নিরাপদ প্রত্যাবাসনের ভিত্তি স্থাপন হল      ||   আইসিজে’র মামলার রায় বিশ্ব মানবতার জন্য মাইলফলক-পররাষ্ট্রমন্ত্রী      ||   মিয়ানমারকে গণহত্যা বন্ধের নির্দেশ আইসিজের      ||   পাকিস্তানে পৌঁছেছে বাংলাদেশ      ||    টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা      ||   সৈকতে বঙ্গবন্ধুর হাজারো ছবি নিয়ে চিত্র প্রদর্শনী করলো শিক্ষার্থীরা      ||   রোহিঙ্গা চাপে ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙ্গে যাচ্ছে-ওবায়দুল কাদের      ||   ব্রাজিলের সাবেক গোলকিপার জুলিও সিজার এখন ঢাকায়      ||   বলিউড তারকা সাইফের সঙ্গে কঙ্গনা      ||   রোহিঙ্গা ইস্যু: জাতিসংঘের জেআরপিতে অন্তর্ভুক্তের বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার      ||   করোনা ভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৯      ||   ই-পাসপোর্টের উদ্বোধন: আর কোন মানুষতে বিড়ম্বনায় পড়তে হবে না- প্রধানমন্ত্রী      ||   প্রার্থীর উপর হামলা গুরুত্বের সাথে নেয়া উচিত ইসির- ওবায়দুল কাদের     
নাইক্ষ্যংছড়িতে সোনালি ধানের বাম্পার ফলন : ন্যায্য দাম পাচ্ছে না কৃষকরা
প্রকাশ: 2019-12-04 09:43 PM   নুরুল আলম সাঈদ, নাইক্ষ্যংছড়ি কৃষি ও প্রকৃতি

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা ও রামুর গর্জনিয়া-কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে এই বছর আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। গত বোরো মৌসুমে ধান চাষ করে কৃষক ক্ষতির সম্মুখীন হলেও এবার নতুন স্বপ্ন নিয়ে আমন ধান চাষ করেছে। তেমন কোনো সমস্যা ছাড়াই কৃষক এবার রেকর্ড পরিমাণ জমির ধান কাটার সোনালি স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। তবে ধানের ন্যায্য মূল্য নিয়ে তারা সংশয়ে রয়েছে। 

নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামু উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামু উপজেলায় এবার কৃষক ১৪ হাজার ১৯৫ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান চাষ করেছেন। অধিকাংশ জমিতে কৃষক হরি জাতেরসহ স্বর্ণা জাতের ধান রোপণ করেছেন। এ ছাড়া বিরি-১৭, ৪৯, ৫১, ৫২, ৫৬,৭১,৭৫, ৮০ ও ৮৭ জাতের ধান চাষ করা হয়েছে। এছাড়া বিন্নি ধানের চাষও করেছেন অনেক চাষীরা। বর্তমানে মাঠে মাঠে ও পাহাড়ী জুমে ধান পাকার পর কাটাঁর উৎসবে মেতেছে চাষীরা। তবে মাঝে বাদামি গাছ ফড়িং (কারেন্ট পোকা) পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছিল। কৃষকরা আগাম ব্যবস্থা নেয়ায় এ রোগ ছড়িয়ে পড়েনি। কিছু চাষীরা ঘূণিঝড় বুলবুল এ ক্ষতির সম্মূখীন হয়েছেন বলেও জানান। এছাড়া গত বোরো মৌসুমে কৃষক ধান চাষের খরচ ও কাটা মাড়াইয়ের মজুরি দিয়ে প্রচুর ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। তারপরও অনেক আশা ভরসা নিয়ে নতুন উদ্যোমে অধিক পরিমাণ জমিতে আমন ধান চাষ করেছেন। 

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বিছামারার কৃষক নুরুল হাকিম বলেন, দুই একর জমিতে তিনি হরি জাতের ধান চাষ করেছেন। একর প্রতি তার ফলন হয়েছে প্রায় ৭০-৭৫ মণ। রামু উপজেলা কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের চাকমার কাটিাঁর কৃষক মোঃ আইয়ুব বলেন, তার জমিতে কানি প্রতিতে ১ টন ধানের ফলন হয়েছে। তবে বাজারে বর্তমানে এ ধানের ন্যায্য মূল্য না থাকায় তিনি হতাশ বলে এই প্রতিবেদককে জানায়। এছাড়া নাইক্ষ্যংছড়ির পাহাড়ে পাকার পর ধান কাটঁতে ব্যস্ত দেখা গেছে উপজাতীয় মািহলাদের। উপজেলা ৫ ইউনিয়নে কাটাও শুরু হয়েছে। মাথায় থুরুং (ধান ভরাব পাত্র) নিয়ে ধান কাটায় ব্যস্ত জুমিয়ারা। তাঁদের ঘরে ঘরে এখন নতুন ধানের উৎসব। 

নাইক্ষ্যংছড়ি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় এ বছর সমতল চাষীদের সাথে পাল্লা দিয়ে পাহাড়ীরা প্রায় ৯ হাজার ২৭০ একর পাহাড়ি জমিতে জুম চাষ হয়েছে। 

সরজমিনে নাইক্ষ্যংছড়ির জারুলিয়া ছড়ি, সোনাইছড়ি, দৌছড়ি, বাইশারী, পাইনছড়ি, কুরিক্ষ্যং, চাকঢালা, জোমখোলার পাহাড় এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, সবুজ বনাঞ্চল বেষ্টিত পাহাড়-টিলা গুলোর ভাঁজে ভাঁজে সোনালি পাকা ধান। জুমঘরগুলো থেকে ভেসে আসছে জুম চাষিদের উল্লেসিত আওয়াজ ও গানের সুর। জারুলিয়াছড়ির পাহাড়ের চূড়ার কাছে জুম চাষী বাহাং মার্মা বলেন, তাঁদের দুই একর খেতে ধান পেকেছে। ধান কাটতে এখন চলছে বিরামহীন কাজ। দৌছড়ির কুরিক্ষ্যং এর আরেক জুমচাষি মিন্টু ¤্রাে বলেন, এ বছর বৃষ্টি কম হওয়ায় এবং যতটুকুই বৃষ্টি হয়েছে, তাও সময়মতো না হওয়ায় আশানুরূপ ফলন হয়নি। 

বান্দরবান জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আলতাফ হোসেন বলেন, এ জেলায় এখন পর্যন্ত ১০ শতাংশ জুমের ধান আহরণ করা হয়েছে। নাইক্ষ্যংছড়িতে ছাগল ও মুরগি জবাই করে জুমের ধান কাটার উদ্বোধন করেছেন জুমিয়ারা। নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামু উপজেলায় বর্তমানে পাহাড়ে জুম ও সমতলে এখন চলছে পুরোদমে ধান কাটা। নাইক্ষ্যংছড়ির সোনাইছড়ির চাহ্লাং মার্মা বলেন, ‘এখন চলছে জুমের ফাং (ধান কাটা উদ্বোধন) উৎসব। মুরগি ও ছাগল জবাই দিয়ে পাহাড়িদের জুমের ধান ফাং উৎসবের প্রথা বহু বছর ধরে চলে আসছে। 

রামুর কচ্ছপিয়ার মৌলভীর কাটার জাফর সওদাগর বলেন,নতুন ধান কাটার পর বাজাতে আসতে শুরু করেছে । তবে ন্যায্য মূল্য নেই ,বর্তমানে নতুন ধান আরি অথাৎ ১০কেজির মূল্য ১১০-১২০ টাকা । ন্যায্য মূল্য না পেলেও গ্রামের প্রচলিত নবান্নের পিঠা উৎসব চলছে প্রতিটি ঘরে ঘরে । আমিও গতকাল সোমবার ভাপাঁ পিঠাসহ রকমারী পিঠা খাওয়ার জন্য ২০ কেজি ধানের চাল গুড়া করে বাড়ী নিয়ে গেছি । বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে,যারা বর্গা জমি নিয়ে ধান চাষ করেছে তারা কানি প্রতি ৩-৪ হাজার টাকার ক্ষতির সম্মূখীন হয়েছে বলে জানা যায় । এই বিষয়ে কচ্ছপিয়ার মৌলভীর কাটার বর্গা চাষী শহর মল্লুক বলেন, প্রতি কানিতে জমির বর্গা (জমির মালিকের চাষ পর্যন্ত জমির মূল্য) ৪ হাজার টাকা, বীজ ধান ৫ শত টাকা,সেচ বাবদ ও ক্ষেতে পানি দেওয়ার জন্য ২ হাজার টাকা, সার-কীটনাশক বাবদ ৩ হাজার টাকা, রোপণের সময় শ্রমিক মজুরী ২ হাজার টাকা, আগাছা পরিস্কার এর সময় শ্রমিক মজুরী ১ হাজার টাকা, ধান কাটাঁর শ্রমিক বাবদ ২ হাজার ৫ শত টাকা, ধান মাড়াই ১ হাজার টাকাসহ ব্যয় হচ্ছে ১৬ হাজার টাকা। বর্তমান বাজারে ধান বিক্রি করে পাওয়া যাচ্ছে ১১-১২ হাজার টাকা। সে হিসাবে ৪-৫ হাজার টাকা পর্যন্ত লোকসান হচ্ছে ধান চাষ করে। কচ্ছপিয়ার বড় জাংছড়ির ধান সওদাগর ও কৃষক শহিদুল্লাহ বলেন-আমার জমিতে এই বছর প্রচুর ফলন হয়েছে। তবে বাজারে ধানের দাম না থাকায় যে টাকা ধানের ক্ষেতে খরচ করেছি ,তা না পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।  

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শিমুল বড়–য়া বলেন, আমন মৌসুমে কৃষক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে ধান চাষ করেছেন। বিভিন্ন জাতের ধান চাষে ব্যাপক সফলতা এসেছে। এ ধানের ফলন একর প্রতি ৭৫-৮০ মণ। ১৫ নভেম্বর সরকারী খাদ্য গুদামে ধান ক্রয় করার জন্য চাষীদের নামে তালিকা পাঠিয়েছেন বলে জানান । সরকারি খাদ্যগুদামে প্রতি কেজি ধান ২৬ টাকা দরে ক্রয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

রামু ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের দাবী তারা প্রকৃত কৃষকদের নামের তালিকা তৈরি করে উপজেলা খাদ্য অফিসে প্রেরণ করেছেন। এই তালিকা থেকে প্রান্তিক, মাঝারি ও বড় কৃষকের তালিকা নির্ধারণ করা হবে।


কৃষি ও প্রকৃতি
বাথরুমে সাপ দেখেই ভড়কে যান নারী

হারিয়ে যাচ্ছে ফসলি জমির উর্বর মাটি, ফসল উৎপাদন হ্রাসের আশঙ্কা

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ: মহেশখালীতে লবণের কেজি ৪ টাকা

১০০ বছর বয়সী ‘লাভার বয়ের ২ হাজার সন্তান জন্ম

‘চ্যানেল আই প্রকৃতি মেলা’র র‌্যালী ও সভা

সারাদেশে বৃষ্টির আশঙ্কা

মহাসাগরে ফুরিয়ে যাচ্ছে অক্সিজেন

একটি কলার দাম কোটি টাকা

নাইক্ষ্যংছড়িতে সোনালি ধানের বাম্পার ফলন : ন্যায্য দাম পাচ্ছে না কৃষকরা

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ পর আসছে ‘পবন’ ও ‘আম্ফান’

প্রিয় নায়িকার জন্য পাঁচ রাত ফুটপাথে ভক্ত
মিয়ানমারের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি করা সরকারের ভুল ছিল-বিএনপি
রোহিঙ্গারা বললেন-এই রায় নিরাপদ প্রত্যাবাসনের ভিত্তি স্থাপন হল
আইসিজে’র মামলার রায় বিশ্ব মানবতার জন্য মাইলফলক-পররাষ্ট্রমন্ত্রী
মিয়ানমারকে গণহত্যা বন্ধের নির্দেশ আইসিজের
পাকিস্তানে পৌঁছেছে বাংলাদেশ
টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা
সৈকতে বঙ্গবন্ধুর হাজারো ছবি নিয়ে চিত্র প্রদর্শনী করলো শিক্ষার্থীরা
রোহিঙ্গা চাপে ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙ্গে যাচ্ছে-ওবায়দুল কাদের
ব্রাজিলের সাবেক গোলকিপার জুলিও সিজার এখন ঢাকায়
বলিউড তারকা সাইফের সঙ্গে কঙ্গনা
রোহিঙ্গা ইস্যু: জাতিসংঘের জেআরপিতে অন্তর্ভুক্তের বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার
করোনা ভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৯
ই-পাসপোর্টের উদ্বোধন: আর কোন মানুষতে বিড়ম্বনায় পড়তে হবে না- প্রধানমন্ত্রী
প্রার্থীর উপর হামলা গুরুত্বের সাথে নেয়া উচিত ইসির- ওবায়দুল কাদের
মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্র বন্দরের কাজ শুরু হচ্ছে
 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
About Coxsbazar Voice
Advertisement
Contact
Web Mail
Privacy Policy
Terms & Conditions
কক্সবাজার ভয়েস পত্রিকার কোন সংবাদ,লেখা,ছবি বা কোন তথ্য পূর্ব অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
All rights reserved © 2019 COXSBAZAR VOICE Developed by : JM IT SOLUTION