Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||   উখিয়ায় চুরিকাঘাতে যুবক খুন      ||   আজ মিয়ানমার যাচ্ছেন সেনাপ্রধান      ||   মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা: বাংলাদেশ থেকে যাচ্ছে প্রতিনিধিদল      ||   গভীর সাগরে র‌্যাবের অভিযান:‌ ১ লাখ ইয়াবাসহ ২      ||   টেকনাফে দু’ডাকাত গ্রুপে গোলাগুলিতে নিহত ১      ||   মহাসাগরে ফুরিয়ে যাচ্ছে অক্সিজেন      ||   রুম্পার মৃত্যু: 'প্রেমিক' আটক      ||   চকরিয়ায় দাঁতের চিকিৎসা নিতে গিয়ে ‘যৌন হেনস্তার শিকার’ গৃহবধূ      ||   সেন্টমার্টিন দ্বীপে দূষণের কারণ অপরিকল্পিত পর্যটন      ||   বড় বাড়ির ভোজ!      ||   উপবণ পর্যটন লেকের গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির বেহাল দশা      ||   পৌর প্রিপ্যারেটরি উচ্চ বিদ্যালয়ে ফরম পূরণে অনিয়ম      ||   রাষ্ট্রপতির কাজে আদালতে প্রশ্ন করা যায় না: প্রধানমন্ত্রী      ||   মাবিয়ার হাত ধরে বাংলাদেশের পঞ্চম সোনা      ||   রোহিঙ্গা নির্যাতন: বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতা বড় চ্যালেঞ্জ     
মিয়ানমারের ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের
প্রকাশ: 2019-07-17 03:35:57   নিউজ ডেস্ক আন্তর্জাতিক

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারে পূর্ব-পরিকল্পিত রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞ শুরু হওয়ার প্রায় দুই বছর পর বর্মি সেনাবহিনীর শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর আবাসস্থল রাখাইনে ব্যাপক মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নিয়েছে ওয়াশিংটন। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক বিবৃতিতে তার দেশের এমন সিদ্ধান্তের কথা জানান।

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের স্থাপনায় অগ্নিসংযোগমাইক পম্পেও বলেন, বার্মার যেসব কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে; রোহিঙ্গাদের ওপর জাতিগত নিধনযজ্ঞ চলাকালে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডে তাদের ভূমিকা ছিল। এমন ভূমিকার জন্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

যাদের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে তারা হচ্ছেন মিয়ানমারের কমান্ডার ইন চিফ বা সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং, ডেপুটি কমান্ডার ইন চিফ সো উইন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল থান ও, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অং আং এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা।

এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সুযোগ পাবে না। এর মধ্য দিয়ে বর্মী সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য ব্যবস্থা নিলো যুক্তরাষ্ট্র।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। সন্ত্রাসবিরোধী শুদ্ধি অভিযানের নামে শুরু হয় নিধনযজ্ঞ। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হতে থাকে ধারাবাহিকভাবে। জাতিগত নিধনযজ্ঞের ভয়াবহতায় জীবন ও সম্ভ্রম বাঁচাতে রাখাইন ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য হয় প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। আগে থেকে উপস্থিত রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সংখ্যা দাঁড়ায় প্রায় ১০ লাখে।

২০১৯ সালের মে মাসে মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে সব ধরনের আর্থিক সম্পর্ক ছিন্নের আহ্বান জানায় দেশটিতে নিযুক্ত জাতিসংঘ মিশন। জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে মিয়ানমার কোনও ভূমিকাই পালন করেনি। জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনের প্রধান মারজুকি দারুসম্যান জানায়, ‘পরিস্থিতি আগের মতোই আছে।’ জাতিসংঘ মিশনের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে যে সামরিক বাহিনী সংখ্যালঘু গোষ্ঠীগুলোর ওপর হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে। আর মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায় চাপিয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর ওপর।

এক বিবৃতিতে মিশনের সদস্য ক্রিস্টোফার সিদোতি বলেন, ‘অতীত থেকে এখনও চলমান মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলোতে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কের দিকে নজর দেওয়া জরুরি। কে এবং কারা এর সঙ্গে জড়িত তা চিহ্নিত করে তাদের অর্থপ্রবাহ বিচ্ছিন্ন করতে চাই আমরা। যেন তাদের ওপর চাপ তৈরি হয় এবং সহিংসতা কমে যায়।

মিয়ানমারের দাবি, তারা কোনও মানবাধিকার লঙ্ঘন করেনি। তাদের নিরাপত্তা বাহিনী বেসামরিকদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেনি বরং সশস্ত্র রোহিঙ্গাদের হামলার জবাব দিয়েছে। তবে জাতিসংঘসহ অন্যান্য সংস্থা বর্মি বাহিনীর এই সামরিক অভিযানকে ‘জাতিগত নিধনযজ্ঞ’ ও গণহত্যা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইনভেস্টিগেটিভ মেকানিজম ফর মিয়ানমার নামে মানবাধিকার পরিষদের নতুন গ্রুপের কাছে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন তুলে দেবে ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন। আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে বিচারিক প্রক্রিয়া স্থাপনে এই গ্রুপটি তৈরি করা হয়েছে।-সূত্র: বাংলাট্রিবিউন।

আন্তর্জাতিক
আরাকান আর্মির শীর্ষ কমান্ডারের স্ত্রী-সন্তান থাইল্যান্ডে আটক

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রক্রিয়া চলবে: হাউস স্পিকার

বিএনপির আইনজীবীদের চকলেটের বদলে বিষ খেতে বললেন নাসিম

ট্রাম্পের ক্ষমতার অপব্যবহার ছিল ‘বিহ্বল করার মতো’

রোহিঙ্গা ইস্যু: মামলার চাপে মিয়ানমার

মার্কিন ঘাঁটির দিকে তাক করে রাখছে মিসাইল: ইরান

লন্ডনে হামলার আইএসের দায় স্বীকার

রাশিয়ার পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা

শেষ পর্যন্ত রোহিঙ্গা হত্যাযজ্ঞের নিন্দা ইসরায়েলের

আকাশে উড়ন্ত দুই কপ্টারের সংঘর্ষে ১৩ সেনা নিহত

উখিয়ায় চুরিকাঘাতে যুবক খুন
আজ মিয়ানমার যাচ্ছেন সেনাপ্রধান
মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা: বাংলাদেশ থেকে যাচ্ছে প্রতিনিধিদল
গভীর সাগরে র‌্যাবের অভিযান:‌ ১ লাখ ইয়াবাসহ ২
টেকনাফে দু’ডাকাত গ্রুপে গোলাগুলিতে নিহত ১
মহাসাগরে ফুরিয়ে যাচ্ছে অক্সিজেন
রুম্পার মৃত্যু: 'প্রেমিক' আটক
চকরিয়ায় দাঁতের চিকিৎসা নিতে গিয়ে ‘যৌন হেনস্তার শিকার’ গৃহবধূ
সেন্টমার্টিন দ্বীপে দূষণের কারণ অপরিকল্পিত পর্যটন
বড় বাড়ির ভোজ!
উপবণ পর্যটন লেকের গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির বেহাল দশা
পৌর প্রিপ্যারেটরি উচ্চ বিদ্যালয়ে ফরম পূরণে অনিয়ম
রাষ্ট্রপতির কাজে আদালতে প্রশ্ন করা যায় না: প্রধানমন্ত্রী
মাবিয়ার হাত ধরে বাংলাদেশের পঞ্চম সোনা
রোহিঙ্গা নির্যাতন: বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতা বড় চ্যালেঞ্জ
মিয়ানমার থেকে ফেরত আসা জেলেরা এখন সেন্টমার্টিনে
 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
About Coxsbazar Voice
Advertisement
Contact
Web Mail
Privacy Policy
Terms & Conditions
কক্সবাজার ভয়েস পত্রিকার কোন সংবাদ,লেখা,ছবি বা কোন তথ্য পূর্ব অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
All rights reserved © 2019 COXSBAZAR VOICE Developed by : JM IT SOLUTION