Untitled Document
শিরোনাম : ||   ঐক্যফ্রন্টে যেতে অনীহা বাম জোটের      ||   ধরা পড়ছে ইলিশ, জেলেদের মুখে হাসি      ||   অর্ধশত কোটি টাকা ব্যয়ের পরও বাড়ছে ডেঙ্গু      ||   পিএসজি নেইমারকে ‘ছেড়ে দিতে পারেন’      ||   এজলাসের খাঁচায় অজ্ঞান হয়ে ২০ মিনিট ছিলেন মুরসি!      ||   কারাগারে ‘বিশেষ সুবিধায়’ বদির চার ভাই      ||   মিয়ানমারে ব্যর্থতার দায়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের পদত্যাগ দাবি      ||   দৈনিক দৈনন্দিন সম্পাদকের জন্মদিন পালন      ||   ঢাকায় পেট্রোল পাম্পে আগুন      ||    মিয়ানমারে ব্যর্থতার দায় স্বীকার জাতিসংঘের      ||   খালেদার জামিন প্রমাণ করে বিচার বিভাগ স্বাধীন      ||   সব বিমানবন্দরে ডগ স্কোয়াড গঠনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর      ||   রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপচিকিৎসায় অর্ধশতাধিক রোহিঙ্গা ডাক্তার!      ||   ফার্মেসির মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ একমাসের মধ্যে সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের      ||   ফোন করে মাশরাফিদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন     
ইয়াবা ডন সাইফুল কোথায়?
প্রকাশ: 2019-05-28     কেফায়েত উল্লাহ কক্সবাজার ভয়েস

ইয়াবা ডন হিসেবে পরিচিত দেশের শীর্ষ ইয়াবা কারবারি হাজি সাইফুল করিম আত্মসমর্পণ করতে কক্সবাজার জেলা পুলিশ হেফাজতে চলে এসেছেন বলে গুঞ্জন ছড়িয়েছে। বলা হচ্ছে, দ্বিতীয় দফায় আত্মসমর্পণের জন্য জেলা পুলিশের হেফাজতে থাকা অন্য ইয়াবা কারবারিদের সঙ্গেই রয়েছেন তিনি। তবে জেলা পুলিশ বলছে, তিনি তাদের কাছে নেই। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠেছে, দীর্ঘদিন নিরুদ্দেশ থাকা এই মাদক কারবারি আসলে কোথায়?


আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, গত শনিবার রাত ১১টার দিকে দুবাই থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান দেশের শীর্ষ ইয়াবা কারবারি হাজি সাইফুল। এ সময় আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়ায় যুক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাকে দ্রুত হেফাজতে নেন। পরদিন সকালের দিকে চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার জেলা পুলিশের কব্জায় নিয়ে আসা হয় তাকে। বর্তমানে তিনি রয়েছেন জেলা পুলিশের নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাইন্সেই। ঈদের পর অন্য ইয়াবা কারবারিদের সঙ্গে আত্মসমর্পণ করবেন আলোচিত এই ইয়াবা কারবারিও।

জানতে চাইলে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন কক্সবাজার ভয়েস’কে বলেন, ‘এই আপনার কাছে শুনলাম। এ রকম হয়ে থাকলে এটি শুধু পুলিশের নয়, পুরো দেশে মাদকবিরোধী অভিযানে সরকারের একটি সফলতা। এ ধরনের ইয়াবা ডন আত্মসমর্পণ করলে তা নিঃসন্দেহে ইয়াবা পাচার বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা। এতে মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স সফলতা পাবে।’

অনুসন্ধানে জানা গেছে, টেকনাফ উপজেলার সদর ইউনিয়নের শিলবুনিয়াপাড়া এলাকার মো. হানিফ প্রকাশ হানিফ ডাক্তারের ছেলে সাইফুল করিম। ১৯৯৮ সালে চট্টগ্রাম মহসিন কলেজে পড়ার সময় নগরীর খাতুনগঞ্জ এলাকায় টেকনাফের বিভিন্ন ব্যবসায়ীর পণ্য  বেচাকেনায় সহায়তা করে খরচ যোগাতেন তিনি। এভাবে কোনোরকমে দিন চলত তার। সে সময় তার দাদার বাড়ি মিয়ানমারের মংডু এলাকার ইয়াবা ডন হিসেবে পরিচিত মগা সুইবিন নামের এক কারবারির সঙ্গে তার সখ্য গড়ে ওঠে। তার পৃষ্ঠপোষকতায় ২০০০ সালের দিকে টেকনাফ স্থলবন্দরে ‘এসকে ইন্টারন্যাশনাল’ নামে আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসা শুরু করেন তিনি। ২০০১ সালে সরকার বদলের সঙ্গে সঙ্গে টেকনাফ বিএনপির প্রভাবশালী নেতা আব্দুল্লাহর সঙ্গে হাত মিলিয়ে তার ছোট বোনকে বিয়ে করে স্থলবন্দর নিয়ন্ত্রণে নেন। স্থলবন্দরে মিয়ানমার থেকে পণ্য অমদানির আড়ালে কৌশলে ইয়াবা আমদানি শুরু করেন। সে সময় ইয়াবা সম্পর্কে অনেকেরই তেমন ধারণা ছিল না। এই সুযোগে পাঁচ ভাইয়ের মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে মাদকের সিন্ডিকেট গড়ে চালান চট্টগ্রাম পাচার শুরু করেন। এমনও হয়েছে সাগরপথে মাছ ধরার ট্রলারে দিনে ১ কোটি থেকে ২ কোটিরও বেশি ইয়াবা এনেছেন। অভিযোগ আছে, চট্টগ্রামের বন্দর ও কোতোয়ালি থানার কতিপয় পুলিশ তার ওইসব চালান গন্তব্যে পৌঁছাতে সহযোগিতা করেন। ওই দুই থানার তৎকালীন ওসি সাইফুলের মাধ্যমে শত কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।

একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, মিয়ানমারের ইয়াবা কারখানা থেকে চালান আসে হাজি সাইফুলের নামে। এজন্য মিয়ানমার-বাংলাদেশ চলাচলের একাধিক জাহাজ কিনেছেন তিনি। কাগজে-কলমে সাইফুল টেকনাফ স্থলবন্দরের সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসায়ী হলেও মিয়ানমার থেকে কাঠ আনার আড়ালে এনেছেন ইয়াবার চালান।

সরকারের বিভিন্ন বাহিনীর সমন্বয়ে করা ইয়াবা কারবারিদের সর্বশেষ তালিকায় ‘এক নম্বর ইয়াবা ব্যবসায়ী’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে  টেকনাফের শীলবনিয়াপাড়ার সাইফুল করিমকে; যিনি সারা দেশে ইয়াবা কারবারিদের কাছে ‘এসকে’ নামেই পরিচিত। তার বৈধ ব্যবসার সাইনবোর্ডের নাম এসকে ইন্টারন্যাশনাল। কিন্তু গত ৯-১০ বছরে সাইফুল ও তার পরিবারের সদস্যরা অবৈধভাবে হাজার কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। তার ভগ্নিপতি সাইফুল ইসলামও এই সিন্ডিকেটে জড়িত। সাইফুল করিমের ইয়াবা সিন্ডিকেটের মূলশক্তি হিসেবে রয়েছেন তার মামা মিয়ানমারে মংডুর আলী থাইং কিউ এলাকার মোহাম্মদ ইব্রাহিম।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, প্রত্যেক গোয়েন্দা রিপোর্টের শীর্ষে সাইফুল করিম ও তার পরিবারের সদস্যদের নাম থাকলে ২০১৭ সালের আগে তার বিরুদ্ধে দেশের কোথাও মাদকসংক্রান্ত কোনো মামলার রেকর্ড পাওয়া যায়নি। ২০১৭ সালের পর কয়েকটা মাদক মামলার আসামি তিনি। গত মাসে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ইয়াবা কারবারিতে পিছিয়ে নেই তার পাঁঁচ ভাই মুন্না, রফিক, জেড করিম, মাহবুব, মিকি ও রাশেদ। নির্বিঘেœ কারবার চালাতে চট্টগ্রাম বার্তা টোয়েন্টিফোর নামক একটি অনলাইনের সম্পাদক পরিচয় দিয়ে বেড়াতেন জেড করিম, মাহবুব ও রাশেদ; যারা এখন জেলে। আর তার অপর দুই ভাইয়ের খোঁজ নেই অনেক দিন ধরে। আর ধরাছোঁয়ার বাইরেই রয়েছেন সাইফুল। তিনি কখনো রেঙ্গুন, কখনো অস্ট্রেলিয়া রয়েছেন বলে কৌশলে তার লোকজনের মাধ্যমে খবরও ছড়িয়ে দেন; যাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সে দেশের বাইরে রয়েছে মনে করে তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা না চালায়।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ১০২ জন তালিকাভুক্ত ইয়াবা কারবারি আত্মসমর্পণ করেন। সে সময় সাইফুল করিম আত্মসমর্পণ করবেন বলে গুঞ্জনও ছড়ায়। দ্বিতীয় দফায় ঈদের পর যে আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠান হবে, সেখানে তিনিও থাকবেন বলে গুঞ্জন চলছে। তবে তিনি এখন ঠিক কোথায় আছেন তা বলতে পারছেন না কেউ।


কক্সবাজার ভয়েস
কারাগারে ‘বিশেষ সুবিধায়’ বদির চার ভাই

‘জন্মদিনে মায়ের কথায় বেশী মনে পড়ে’- ইশতিয়াক আহমেদ জয়

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপচিকিৎসায় অর্ধশতাধিক রোহিঙ্গা ডাক্তার!

উখিয়ায় স্থানীয়দের নির্মাণকৌশলে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে জাতিসংঘের তিন সংস্থা

খুরুশকুলে চাঁদা না দেয়ায় দুর্বৃত্তদের হামলা যুবক আহত

টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‌বন্দুকযুদ্ধে ৩ মাদককারবারি নিহত

মুঠোফোনে প্রতারণা: সতর্ক থাকার আহবান জেলা প্রশাসকের

শহরে ১ লাখ ৭০ হাজার ইয়াবা সহ আটক ২

ইয়াবা কিনতে এসে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নারায়নগঞ্জের যুবক নিহত

বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে কক্সবাজার আওয়ামী লীগের মিছিল

ঐক্যফ্রন্টে যেতে অনীহা বাম জোটের
ধরা পড়ছে ইলিশ, জেলেদের মুখে হাসি
অর্ধশত কোটি টাকা ব্যয়ের পরও বাড়ছে ডেঙ্গু
পিএসজি নেইমারকে ‘ছেড়ে দিতে পারেন’
এজলাসের খাঁচায় অজ্ঞান হয়ে ২০ মিনিট ছিলেন মুরসি!
কারাগারে ‘বিশেষ সুবিধায়’ বদির চার ভাই
মিয়ানমারে ব্যর্থতার দায়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের পদত্যাগ দাবি
দৈনিক দৈনন্দিন সম্পাদকের জন্মদিন পালন
ঢাকায় পেট্রোল পাম্পে আগুন
মিয়ানমারে ব্যর্থতার দায় স্বীকার জাতিসংঘের
খালেদার জামিন প্রমাণ করে বিচার বিভাগ স্বাধীন
সব বিমানবন্দরে ডগ স্কোয়াড গঠনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপচিকিৎসায় অর্ধশতাধিক রোহিঙ্গা ডাক্তার!
ফার্মেসির মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ একমাসের মধ্যে সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের
ফোন করে মাশরাফিদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন
বাংলাদেশ ও সাকিবে মুগ্ধ সৌরভ-লক্ষণ
 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীন সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
About Coxsbazar Voice
Advertisement
Contact
Web Mail
Privacy Policy
Terms & Conditions
কক্সবাজার ভয়েস পত্রিকার কোন সংবাদ,লেখা,ছবি বা কোন তথ্য পূর্ব অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
All rights reserved © 2019 COXSBAZAR VOICE Developed by : JM IT SOLUTION