রবিবার, ২১ Jul ২০২৪, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

যেকোন ছুতোয় বাড়ে সবজির দাম, ভাসমান ভ্যানে স্বস্তি

ভয়েস নিউজ ডেস্ক:

বৃষ্টি হোক আর কড়া রোদ, যেকোন ছুতোয় বাড়ে সবজির দাম। গেলো কয়েকদিনের বৃষ্টিতেও পুরনো ছুতোয় বাড়তি দামে সবজি বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে নগরীর বিভিন্ন কাঁচাবাজারে সবজির আগুনে দাম হলেও কিছুটা স্বস্তি মিলছে সড়কের পাশে সবজির ভাসমান ভ্যানে। কাঁচাবাজার ও ভাসমান ভ্যানে প্রায় একইরকম সবজি মিললেও দামে রয়েছে বিস্তর ফারাক। এই দুই স্থানে সবজির দামের তফাত ২০ থেকে ৪০ টাকা পর্যন্ত। গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীর অক্সিজেন, চকবাজার, বহদ্দারহাট, আতুরার ডিপো, কাজীর দেউড়ি, কর্ণফুলী কমপ্লেক্স, খাতুনগঞ্জ, রিয়াজউদ্দিন বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে বাজারদরের এই চিত্র।

এদিন নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ভাসমান ভ্যানে কাঁকরোল ও করলা ৮০, চিচিঙ্গা ৪০, ঢেঁড়স ৫০, আলু ৬০, পটল ৫০, কাঁচা মরিচ ২০০, মিষ্টি কুমড়া ৩০, বরবটি ১২০, টমেটো ১২০, পেঁপে ৪০, গাজর ১৪০ এবং শসা ৬০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হয়েছে।

অথচ একইদিন নগরীর কাঁচাবাজারগুলোতে এসব সবজির মধ্যে কাঁকরোল ও করলা ৯০-১০০, চিচিঙ্গা ৬০-৭০, ঢেঁড়স ৫০-৬০, আলু ৬০, পটল ৬০, কাঁচা মরিচ ২০০, মিষ্টি কুমড়া ৫০, বরবটি ১৪০, টমেটো ১৫০, পেঁপে ৫০-৬০, গাজর ১৪০ এবং শসা ১০০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়েছে।

এদিকে, পাইকারিতে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির প্রভাবে খুচরায়ও বাড়ছে পণ্যটির দাম। এর মধ্যে খুচরায় ১০০ টাকা থেকে পেঁয়াজের দাম চলতি সপ্তাহে ৫-১০ টাকা কমলেও পাইকারিতে ফের ২ থেকে ৩ টাকা বৃদ্ধির খবরে গেলো তিনদিনে খুচরায়ও ফের বেড়েছে পণ্যটির দাম। বর্তমানে নগরীতে জাতভেদে ৯৫ থেকে ১০০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। তবে পাইকারিতে গেলো সপ্তাহে রসুনের দাম ৪০ কমলেও খুচরায় এখনও ১৮০ থেকে ২০০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হচ্ছে পণ্যটি।

অন্যদিকে, কমতে থাকা মুরগির দাম কেজিপ্রতি কমেছে আরও ২০ টাকা। গতকাল ব্রয়লার মুরগি ১৫০, সোনালি ৩০০ এবং দেশি মুরগি ৪৮০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হয়েছে নগরে। অপরিবর্তিত রয়েছে মাছ-মাংসের দাম। গতকাল নগরে গরুর মাংস ৮৫০ থেকে ১ হাজার ৫০ এবং ছাগলের মাংস ১ হাজার ৫০ থেকে ১১শ ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া আকারভেদে রুই ২৬০ থেকে ৩৬০, কাতল ৩২০ থেকে ৩৬০, মৃগেল ২০০-২৫০, আকারভেদে পাঙ্গাস ১৮০-২২০, তেলাপিয়া ২০০-২২০, স্যালমন ফিশ ৪৫০, বাগদা চিংড়ি ৮০০, রূপচাঁদা জাত ও আকারভেদে ৫৫০ থেকে ৭০০, পোয়া মাছ ২৫০, পাবদা ৩৫০ থেকে ৪০০, সুরমা ৩৫০ থেকে ৫৫০, টেংরা ৩৭০ এবং নারকেলি মাছ ২৫০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হয়েছে।

ভয়েস/জেইউ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2023
Developed by : JM IT SOLUTION