রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০১:৪৩ অপরাহ্ন

দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

মিয়ানমারে বিলুপ্ত হচ্ছে অং সান সু চির এনএলডিসহ ৪০টি দল

অংসান সুচি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মিয়ানমারে ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসিসহ (এনএলডি) ৪০টি দলকে বিলুপ্ত করছে দেশটির সামরিক জান্তা নিয়ন্ত্রিত নির্বাচন কমিশন। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন মায়াওয়াদি টিভির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আলজাজিরা ও রয়টার্স। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মায়াওয়াদি টিভি এক সংবাদ বুলেটিনে জানিয়েছে, ক্ষমতাসীন সামরিক বাহিনী আরোপিত নতুন নির্বাচন আইন মেনে ৬৩টি দল স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে নিবন্ধিত হয়েছে। কিন্ত সু চির দল এনএলডিসহ ৪০টি দল নিবন্ধন করেনি। তাই এসব দল বিলুপ্ত হয়ে গেছে।

সেনাবাহিনী আগামী জুলাইয়ের শেষ নাগাদ দেশে নতুন জাতীয় নির্বাচন করতে চায়। যদিও কোনো তারিখ নির্ধারণ করা হয়নি। সে জন্য গত জানুয়ারিতে নতুন নির্বাচনী আইনের অধীনে পুনর্নিবন্ধনের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে দুই মাস সময় বেঁধে দেয় সামরিক বাহিনী। কিন্তু ফেব্রুয়ারিত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়নি এমন অজুহাত দেখিয়ে জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ছয় বাড়িয়ে নেয় তারা। এখন বিরোধীরা বলেছে যে এই নির্বাচন অবাধ বা সুষ্ঠু হবে না।
আজকের পত্রিকা অনলাইনের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

এ নিয়ে মঙ্গলবার বোবো উ নামের এনএলডির এক নির্বাচিত আইন প্রণেতা বলেন, একটি অবৈধ নির্বাচন হতে চলেছে। এই নির্বাচনে এনএলডি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে না। জনগণকে নির্যাতন করছে সামরিক বাহিনী। এমন সময়ে একটি নির্বাচন হবে যখন অনেক রাজনৈতিক নেতা ও কর্মীকে গ্রেপ্তার করে রাখা হয়েছে। আমরা তা একেবারেই মেনে নেব না।’

মায়ানমারে ২০২০ সালের নভেম্বরে সর্বশেষ জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনে অং সান সু চির দল এনএলডি বিপুল ভোটে জয়লাভ করে। কিন্তু তিন মাসেরও কম সময়ের মধ্যে একটি অভ্যুত্থান ঘটিয়ে সু চিকে কারাগারে পাঠায় দেশটির সেনাবাহিনী। এরপর ভোট জালিয়াতিসহ বেশ কিছু অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। সেই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে ৩৩ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করছেন ৭৭ বছর বয়সী এই নোবেল বিজয়ী। সমর্থকদের দাবি, তাঁকে সক্রিয়ভাবে রাজনীতিতে অংশ নেওয়া থেকে বিরত রাখার জন্য এসব অভিযোগ আনা হয়েছে। অন্যদিকে সর্বশেষ জাতীয় নির্বাচনে ব্যাপক ভোট জালিয়াতি হয়েছিল বলে অভ্যুত্থানকে ন্যায্য বলে দাবি করছে সেনাবাহিনী। যদিও পর্যবেক্ষকরা ওই নির্বাচনে বড় কোনো অনিয়মের অভিযোগ তোলেননি।

ভয়েস/জেইউ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2023
Developed by : JM IT SOLUTION